আমাদের কথা

প্রায় ৩ বছর আগে ছোট্ট একটি পরিচ্ছন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে  Life Cycle এর যাত্রা শুরু হলেও দীর্ঘ ৩ বছরের পথচলায় অনেক কর্মসূচী সমাজের চাহিদায় সংযুক্ত হয়েছে । বাস্তবতায় Life Cycle এখন সমাজের সুবিধা বঞ্চিত থেকে শুরু করে এলিট শ্রেণী-পেশা মানুষের জীবন ধারার একটি অংশে পরিগণিত হচ্ছে । জীবনচক্র যেমন জম্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত তেমনি আমাদের কাজগুলোও মানুষের জম্ম থেকে শুরু করে মৃত্যু পর্যন্ত বিভিন্ন সেচ্ছামুলক কাজের স্বমন্বয়ে সাজানো । সদ্য জম্ম নেয়া নবজাতককে  Life Cycle এর সদস্যরা ফুল ও মিষ্টি দিয়ে বরন করে নেয় তাছাড়া বাবা মায়ের জন্য সবচেয়ে কষ্টসাধ্য কাজটি অর্থ্যাৎ নাম রাখার সুবির্ধাথে উপহার দেয় ‘‘ সুন্দর নাম রাখার বই ’’। নবজাতককে কখন , কোথায় , কিভাবে টিকা ও চিকিৎসা করবে তার জন্য  Life Cycle এ পুরো সপ্তাহে জুড়ে ডাক্তার এর ব্যবস্থা আছে ।  জরুরী স্বাস্থ্য সেবার জন্য প্রস্তুত আছে  Life Cycle এর ২৪ ঘন্টা সার্ভিস এর এ্যাম্বুলেন্স । এছাড়া স্বনামধন্য ডাক্তার এর ফোন নম্বর, সিরিয়াল, ভিজিটিং আওয়ার , ভিজিটিং ফি , কোথায় ও কখন বসে সবকিছুই জানা যাবে । তাছাড়া  Life Cycle এ পাওয়া যাবে টেলিমেডিসিন সেবা অর্থ্যাৎ ২৪ ঘন্টায় টেলিফোনে পেসক্রিপশন সার্ভিস ।

 

মিশন

জীবন বাচাঁতে সাহায্যকারী যে রক্ত, যার অভাবে লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতি বছর মারা যাচ্ছে । সেই রক্তের কেন্দ্রীয় ডাটা সংগ্রহ ও এলাকাভিত্তিক রক্ত সরবরাহ আমরাই বাংলাদেশে প্রথম প্রচলন করি । যার মাধ্যমে প্যাকেটজাত রক্ত পরিহার করে সাহায্যকারী  নিজ নিজ এলাকার ডোনার এর মাধ্যমে ফ্রেশ রক্তের ব্যবস্থা করে থাকে  Life Cycle । শুধু জীবন বাচাঁতে নয় মৃত্যুর পরও আমরা  মৃত্যু ব্যক্তির গোসল-কাফন থেকে শুরু করে  কবরের জায়গা খোজা , কবর খোড়া ও চুড়ান্ত দাফনের সময় আমরা থাকি। এ সকল কাজ  Life Cycle এ ভিত্তি হলেও অন্যান্য সকল সমাজ কল্যান মুলক কাজে  Life Cycle সব সময় সবার পাশে সবার আগে ।

ভিশন

বর্তমানে স্বাস্থ্যসেবা খাতটি  নাজুক হওয়ায় এই খাতটি বিশেষ প্রাধান্য দিয়ে আমরা কাজ করছি হত দরিদ্র শ্রেণী থেকে শুরু করে ধনাঢ্য শ্রেণী পর্যন্ত । মানুষকে  বিভিন্ন সেবা ও তথ্য প্রদানের মাধ্যমে  সহযোগীতার জন্য  Life Cycle এর প্রচেষ্টা । ২০১৫ সাল থেকে রক্তের কেন্দ্রীয় ডাটা সংগ্রহ ও এলাকাভিত্তিক রক্ত সরবরাহের মাধ্যমে আমাদের যাত্রা শুরু হয় । জম্মকালীন নবজাতককে ক্ষুদ্র পরিসরে উপহার ও নামের বই প্রদান এবং মৃত্যুকালীন দাফন-কাফনের ব্যবস্থা, নবজাতককে স্বাস্থ্য সেবা ও ডাক্তার এর মাধ্যমে পরামর্শ সেবা শুরু হয়েছে ২০১৭ সাল থেকে । ডাক্তার , হাসপাতাল , এ্যাম্বুলেন্স এর কেন্দ্রীয় তথ্য সরবরাহ এবং হতদরিদ্র রোগীদের স্বল্প ব্যয়ে উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা করা শুরু হবে ২০১৮ সালে ।

Bloodinfobd.com এর মাধ্যমে কেন্দ্রীয় রক্তের ডাটাকরন ও এলাকা ভিত্তিক সরবরাহ ২০১৫ সাল থেকে শুরু করে প্রায় ১০,০০০ সদস্য তৈরী করতে সক্ষম হয়েছি । আশাকরি সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ২০২০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের সবচেয়ে বৃহৎ ও বিশ্বের অন্যতম সেচ্ছাসেবক প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে যার সদস্য সংখ্যা হবে প্রায় ১০,০০,০০০ । এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে আপাতত ঢাকা সিটির বিভিন্ন এলাকায় সামাজিক সংগঠনের , সেচ্ছাসেবী সংগঠন , কলেজ , বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যোগাযোগ করে ফ্রি রক্তের গ্রুফ ও ডেটাবেজ সংরক্ষনের কাজ ব্যাপক ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে । ঢাকার পর আমরা অন্যান্য বিভাগীয় শহর চট্রগ্রাম, খুলনা, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ , সিলেট এবং বরিশালে কাজের পরিধি বৃদ্ধি করা হবে । যা ইতিমধ্যে আমরা শুরু করেছি । জম্মকালীন নবজাতকদের জন্য  Life Cycle এর মতই আমরা সকল জায়গায় সেচ্ছাসেবক গঠনের কাজ শুরু করেছি  যা খুব দ্রুত সময়ে সকলের মাঝে ছড়িয়ে যাবে ।

হাসপাতাল ও ডাক্তারদের তথ্য সংগ্রহ প্রায় শেষ পর্যায়ে । এই তথ্যকে সকলের জন্য উম্মুক্ত করা হবে খুব শিগ্রই । এছাড়া হত দরিদ্র ও নিঃস্ব মানুষকে খুব স্বল্প ব্যয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য আমরা বিভিন্ন হাসপাতালে যোগাযোগ করিতেছি । মানুষের জরুরী চিকিৎসায় যাতে ২৪ ঘন্টা এ্যাম্বুলেন্স পায় সেই জন্য আমাদের সর্বোচ্চ তৎপরতা চালাচ্ছি বিভিন্ন সংস্থা ও সেবা প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ সম্পন্ন হয়েছে । মৃত্যুকালীন বিভিন্ন প্রয়োজনীয়তা যেমন মাইকিং, গোসলের ব্যবস্থা, দাফন-কাফনের ব্যবস্থা  Life Cycle এর সদস্যরা যার যার এলাকা থেকে খুব দ্রুত সময়ে মানবতার কল্যানের জন্য সাহায্য করবে । সর্বপরি যে কোন ধরনের মানবতার কল্যাণ বা দূর্যোগে আমরা সবসময় সবার আগে সবার পাশে । মানবতার কল্যানে যেন প্রত্যেক মানুষের জীবনের পরতে পরতে সাহায্য করতে পারি এটাই হবে  Life Cycle এর একমাএ লক্ষ্য ।  Life Cycle যেন ক্ষুদ্র পরিসর থেকে সমগ্র দেশের মানুষের জীবন চক্রের ধাপে ধাপে মানবতার কল্যান করতে পারে যা বিশ্বব্যাপী সকলের অনুপ্রেরণার উৎস হয় ।